লিপটন গুম মামলা

আলোচিত শিক্ষিকা তানিয়া বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১১, ২০১৮

ঝিনাইদহ: ট্রাক ব্যবসায়ী রিয়াজুল ইসলাম লিপটনকে (২৬) গুম করা মামলার প্রধান আসামি শৈলকূপা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শারমিন আক্তার তানিয়াকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বুধবার বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও শৈলকূপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. উসমান গনি স্কুল কমিটির সভার মাধ্যমে তাকে বরখাস্ত করেন। ইউএনও উসমান গনি এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

জেলা শিক্ষা অফিসার সুশান্ত কুমার দেব জানান, কোন শিক্ষক ফৌজদারি মামলায় জেল হাজতে গেলে তাকে মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত সাময়িক বরখাস্ত করার বিধান রয়েছে। তারপর মামলায় নির্দোষ প্রমাণিত হলে আবার চাকরীতে ওই শিক্ষক পুনর্বহাল হবেন।

জানা গেছে, আদালতের নির্দেশে মামলা হলে লিপটন গুম মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন লাভ করেন তানিয়া। তার সাথে ৮ আসামিও জামিন নেন। মেয়াদ শেষ হলে আসামিরা নিন্ম আদালতে হাজির হলে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়। পুলিশ তার তিনদিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

শৈলকূপার ওসি আইয়ুবর রহমান জানান, তানিয়ার দেয়া তথ্য তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার ঝিনাইদহের একটি আদালতে তার জামিন শুনানি ছিল। কিন্তু বিজ্ঞ আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, লিপটনকে ইটভাটায় পুড়িয়ে হত্যা করার তদন্ত সংস্থা পিবিআই’র সন্দেহ থেকে আদালতের নির্দেশে শৈলকূপা থানায় গুম মামলা হয়। গত ৪ জানুয়ারি থেকে লিপটন নিখোঁজ রয়েছে। তাকে কোথাও পাওয়া যাচ্ছে না। পরিবারের সন্দেহ লিপটনকে হত্যা করা হয়েছে। লিপটন শৈলকূপা শহরের হাবিবপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে।

ঝিনাইদহ পিবিআইর এসআই গাবুর আলী সরদার একাধিক সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে আদালতে তার মতামত উপস্থাপন করে জানান, আসামি শৈলকূপা বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শারমিন আক্তার তানিয়া শৈলকূপার কাজী পাড়ার মৃত আশরাফুল আলমের স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ের সাথে নিখোঁজ লিপটনের পরকীয়া ছিল। সেই সূত্র ধরে লিপটন তানিয়ার বাড়িতে যাতায়াত করতো। নিখোঁজ হওয়ার পর তানিয়া তার ইটভাটার সরদার নজরুল ইসলামসহ একাধিক ব্যক্তির সাথ মোবাইলে কথা বলার বিষয়টি পিবিআই রহস্যজনক চোখে দেখে। মামলার বাদী ও লিপটনের পিতা আব্দুল খালেকের আশঙ্কা লিপটনের দুইটি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট-১৮-৮৪৫৭ ও ঝিনাইদহ-ট-১১-১২৯৪) আত্মসাৎ করার জন্য তানিয়া তাকে ইটভাটার জ্বলন্ত আগুনে পুড়িয়ে খুন করেছে। কারণ লিপটন নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে তার দুইটি ট্রাকের ভাড়া আদায় করে তানিয়া। ট্রাক দুইটি এখনো পর্যন্ত গোপন রাখা হয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রাখা হচ্ছে বলে লিপটনের পিতা অভিযোগ করেন।