ডে-ট্রেডারনির্ভর হয়ে পড়ছে পুঁজিবাজার

বুধবার, অক্টোবর ১০, ২০১৮

ঢাকা: স্থিতিশীল পুঁজিবাজারের অন্যতম প্রধান শর্ত দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ হলেও বর্তমানে এর উল্টোচিত্র পরিলক্ষিত হচ্ছে। দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের চেয়ে ডে-ট্রেডারের ভূমিকায় দেখা যাচ্ছে অধিকাংশ বিনিয়োগকারীকে। তারা শেয়ার ম্যাচিউরড বা লেনদেনযোগ্য হলেই তা ছেড়ে দিয়ে মুনাফা করতে চাইছেন।

অন্যদিকে মুনাফা না হলে গুজবে কান দিয়ে কিংবা অন্যের কথা শুনে এক কোম্পানির শেয়ার লোকসানে ছেড়ে ঢুকে পড়ছেন অন্য কোম্পানিতে। এ কারণে বাজার তার স্বাভাবিক গতি ফিরে পাচ্ছেন বলে মনে করছেন বাজারসংশ্লিষ্টরা।

মতিঝিলের বিভিন্ন ব্রোকারেজ হাউজ ঘুরে দেখা গেছে, অধিকাংশ বিনিয়োগকারীই বেশি দিন শেয়ার ধরে রাখতে চান না। তারা চান অল্পদিনে অধিক পুঁজি ঘরে তুলতে। সেজন্য তারা প্রতিনিয়ত পোর্টফোলিওতে পরিবর্তন আনছেন। বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা প্রতিদিনই নতুন নতুন খবরের অপেক্ষায় থাকে। কোন কোম্পানির শেয়ারদর বাড়বে এমনটি জানতে পারলেই তারা ঝুঁকে পড়েন সংশ্লিষ্ট কোম্পানিতে।

কোনো বাছবিচার না করেই কিনে নেন এই কোম্পানির শেয়ার। এই শেয়ার লেনদেনযোগ্য হলেই তা বিক্রি করে দেন। এরপর আরেক কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগ করেন। এখানে সামান্য লাভ হলেই আবারও পোর্টফোলিওতে পরিবর্তন আসে। অন্যদিকে যারা এভাবে লাভ করতে পারেন না, তারাও অন্য কোম্পানিতে লাভ করবেন এমন প্রত্যাশা নিয়ে বিনিয়োগ করেন। ফলে লোকসানেই বিক্রি করে দেন আগের কোম্পানির শেয়ার।