ইন্দোনেশিয়ায় সুনামিতে নিহতের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়ানোর আশঙ্কা

সোমবার, অক্টোবর ৮, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্প ও সুনামিতে নিহতের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়াতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কেননা দেশটিতে এখনও নিখোঁজ রয়েছে প্রায় ৫ হাজারের মত লোকজন। সুনামির এক সপ্তাহ পেরিয়ে যাবার পর তাদের জীবিত উদ্ধারের আশা ছেড়ে দিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

গত শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্পের পর সন্ধ্যায় ৬ থেকে ৭ ফুট উঁচু ঢেউ আঘাত হাসে সুলাবেশি দ্বপে।

সরকারি হিসেব মতে এই দুর্যোগে ১৯৪৪ জন নিহত হয়েছে। কিন্তু নিহতের এই সংখ্যা তিন গুণ হবে বলেই এখন ধারণা করা হচ্ছে। কেননা এ ঘটনায় এখনও নিখোঁজ রয়েছে প্রচুর মানুষ। আহত হয়েছে আরো হাজার হাজার মানুষ। ধ্বংস হয়েছে ৭০ হাজারের বেশি ঘরবাড়ি ও বিভিন্ন স্থাপনা।

সুনামিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো হচ্ছে পালু শহরের পেটোবো ও বালারোয়া। এসব এলাকার বেশ কিছু গ্রাম ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। সমুদ্রের স্রোতে ভেসে গেছে হাজার হাজার মানুষ।

শনিবার দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার মুখপাত্র সুতোপো পুরও নুগ্রোহো বলেন, বালারোয়া ও সুতোবো এলাকার প্রশাসনিক প্রধানরা বলছেন, ওইসব এলাকার প্রায় ৫ হাজার বাসিন্দা এখনও নিখোঁজ রয়েছে। কর্মকর্তারা এখনও এ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা চালাচ্ছেন। কিন্তু সুনামি, ভূমিধস, তরল পদার্থ বা কাদায় হারিয়ে যাওয়াদের সঠিক সংখ্যা পাওয়া এত সহজ নয়।’

দুর্যোগের ১০ দিন পর জীবিতদের উদ্ধারেরও কোনো আশা দেখছেন না কর্তৃপক্ষ। আগামী বৃহস্পতিবার উদ্ধার অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করবে ইন্দেনেশিয়া সরকার। এরপর নিখোঁজদের নিহত বলেই গণ্য করা হবে।

প্রসঙ্গত, ভূমিকম্পপ্রবণ দেশগুলির মধ্যে প্রথম সারিতেই রয়েছে ইন্দোনেশিয়া। মাঝেমধ্যেই কেঁপে উঠে এই দ্বীপ রাষ্ট্র। ২০০৪ সালে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বড় ভূমিকম্প এবং তার জেরে সুনামি আছড়ে পড়ে অন্তত ১৩টি দেশে। সব দেশ মিলিয়ে দু’লক্ষেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়। শুধু ইন্দোনেশিয়াতেই মৃতের সংখ্যা ছিল এক লক্ষ ২০ হাজার।

সূত্র: গার্ডিয়ান