শাহবাজ শরিফকে ১০ দিনের রিমান্ডে

প্রাইমনিউসবিডি.কম

রবিবার, অক্টোবর ৭, ২০১৮

পাকিস্তানের পার্লামেন্টের প্রধান বিরোধী দলের নেতা শাহবাজ শরিফকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

লাহোরে দেশটির অ্যাকাউন্টিবিলিটি আদালত শনিবার (৬ অক্টোবর) শাহবাজকে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন মঞ্জুর করেন। ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরোর (এনএবি) পক্ষ থেকে ওই রিমান্ড আবেদন করা হয়েছিল।

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাই শাহবাজকে গতকাল শুক্রবার লাহোরে এনএবি কার্যালয়ে গ্রেপ্তার করা হয় । এর আগে সেখানে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে তলব করা হয়েছিল। আহসানিয়া হাউজিং দুর্নীতির মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। শাহবাজ পাঞ্জাব প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী। তিনি প্রধান বিরোধী দল পিএমএল-এনেরও প্রধান।

ডন অনলাইনের খবরে বলা হয়, শাহবাজকে আজ আদালতে হাজির করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন এনএবির কর্মকর্তারা। শুনানি শেষে আদালত ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আগামী ১৬ নভেম্বর তাঁকে আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আজকের শুনানি জাজেজ চেম্বারে হওয়ার কথা থাকলেও পিএমএল-এন’র আইনজীবীরা প্রতিবাদ জানালে পরে উন্মুক্ত আদালতে নেয়া হয়।

শুনানির সময় শাহবাজ শরিফ বলেন, ‘আমি অবৈধ কোনো কাজ করিনি। সবসময়ই দেশের কল্যাণে কাজ করেছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা লুটেরাদের কাছ থেকে মিলিয়ন মিলিয়ন টাকা দেশের কোষাগারে জমা করেছি।’

চৌধুরী লতিফ অ্যান্ড সন্সের সঙ্গে আশিয়ানা হাউজিং স্কিমের চুক্তির বাতিল করার আদেশ দেয়ার অভিযোগ আনা হয় শাহবাজ শরিফের বিরুদ্ধে। প্যারাগন সিটি প্রাইভেট লিমিটেডের এর প্রক্সি প্রতিষ্ঠান লাহোর কাসা ডেভলপারের সঙ্গেও প্রকৌশল চুক্তি বাতিলের নির্দেশ দেন তিনি। এতে ১৯ কোটি ৩০ লাখ রুপি রাজস্ব হারায় সরকার।

আজ আদালতে শাহবাজ শরিফের আইনজীবী আমজাদ পারভেজ বলেন, ‘চৌধুরী লতিফ একটি দুর্নীতির মামলায় পলাতক আছেন। তার কোম্পানি কালো তালিকাভুক্ত।’

শুনানির পর শাহবাজ শরিফকে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে এনএবি কার্যালয়ে নেয়া হয়। গতকাল রাতেও তাকে সেখানে থাকতে হয়েছিল।

পিএমএল-এনের মুখপাত্র মরিয়ম আওরঙ্গজেব আদালতের বাইরে সাংবাদিকদের বলেছেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য সরকার এনএবিকে ব্যবহার করছে।