ক্রিকেটারদের ইনজুরি সমস্যাকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে বিসিবি

প্রাইমনিউসবিডি.কম

রবিবার, অক্টোবর ৭, ২০১৮

বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র আট মাসের মতো। এমন সময়ে এসে দলগুলো যখন সেরা একাদশ থিতু করতে ব্যস্ত, বাংলাদেশের তখন চোট নিয়ে দুশ্চিন্তা। সাকিব-তামিমের মতো সিনিয়রদের চোটে কম্বিনেশন বদলে বদলে খেলতে হচ্ছে টাইগারদের। তারপরও দুশ্চিন্তা থেকেই যাচ্ছে, দলের সেরা তারকাদের বিশ্বকাপের আগে ফিট হিসেবে পাওয়া যাবে তো!

ঝুঁকি নিয়ে এশিয়া কাপ খেলা সাকিব আল হাসানের আঙুলে ইনফেকশন হয়ে গেছে। সেটার চিকিৎসা চলছে, এরপর বাকি অস্ত্রোপচার। তামিম ইকবালের আঙুলে সমস্যা ছিল, এশিয়া কাপ খেলতে গিয়ে ব্যথা পেয়েছেন বাঁ হাতের কব্জিতেও। মাশরাফির উরুতে রক্ত জমে গেছে, ক্যাচ ধরতে গিয়ে হাতের আঙুল গেছে কেটে। মুশফিকুর রহীমও ভুগছেন পাঁজরের সমস্যায়। সবমিলিয়ে পঞ্চপাণ্ডবের চারজনই বড়সড় ইনজুরিতে।

এরই মধ্যে দরজায় কড়া নাড়ছে জিম্বাবুয়ে সিরিজ। সাকিব-তামিম তো খেলতে পারবেনই না। মাশরাফি, মুশফিককে ঝুঁকি নিয়ে খেলানো হবে কি না, সেটাও চিন্তার বিষয়। কেননা এই সিরিজের চেয়ে বিশ্বকাপের গুরুত্ব অনেক বেশি। বিশ্বকাপের আগে সিনিয়রা কেউ আরও বড় চোটে পড়ুক, সেটা চাইছেন না কেউই।

তারপরও হয়তো জিম্বাবুয়ে সিরিজে কম ঝুঁকিতে থাকা মাশরাফি-মুশফিককে খেলানো হবে। সেক্ষেত্রে চোটের তীব্রতা বাড়লে কিছুই করার থাকবে না। বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স ম্যানেজার আকরাম খান জানালেন, ক্রিকেটারদের চোট সমস্যার কথা তারা গুরুত্ব দিয়েই ভাবছেন। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজটিও তো আর হেলাফেলার সঙ্গে শেষ করা সম্ভব নয়। এর মধ্যে কেউ বড় চোটে পড়ে গেলে কিছু করার থাকবে না।

ইনজুরি নিয়ে বিসিবির ভাবনা কি? জানাতে গিয়ে আকরাম বলেন, ‘আমরা ইনজুরি সংক্রান্ত বিষয়গুলো নিয়ে ৬-৭ মাস আগে টিম ম্যানেজম্যান্টের সাথে আলাপ আলোচনা করেছিলাম। সত্যি কথা বলতে এখন ১৩-১৪ জন ক্রিকেটার ইনজুরিতে আছে। এটা আমাদের জন্য অনেক সিরিয়াস একটা ব্যাপার। কারণ আমাদের অপশন অনেক কম। আমরা চেষ্টা করছি এবং চিন্তা ভাবনাও করছি। প্রত্যেকটা পদক্ষেপ আমাদের অনেক গুরুত্বের সাথে নিতে হবে। কিছু খেলোয়াড় আছেন যারা খুব দ্রুত সেরে উঠবেন। হয়তো সাকিব-তামিমেরটা একটু সময় লাগবে। বাকিদের ইনশা আল্লাহ প্ল্যান মত করলে এরই মধ্যে আমরা দেখতে পাব। তবে এর মধ্যে আবার কেউ গুরুতর ইনজুরিতে পড়লে তখন কিছু করার থাকবে না।’

ইনজুরি থেকে ফেরার পরই কিন্তু সব দুশ্চিন্তার অবসান নয়। বিশ্বকাপের আগে মানিয়ে নেয়ার একটা ব্যাপার থাকে। সাকিব-তামিমদের বিশ্বকাপের আগে মানিয়ে নিতেই হবে। এ নিয়ে আকরাম বলেন, ‘যত সুযোগ সুবিধা দরকার হবে সব আমরা দিব। আমি তো আগেই বলেছি, এখানে করার কিছু নেই। স্পোর্টসম্যানদেরকে ইনজুরি সমস্যা থাকে, কিন্তু আমাদের ভাগ্য খারাপ হয়তো। তাই এশিয়া কাপে ৫০ ভাগ শক্তি নিয়ে আমরা খেলেছি। গুরুত্বপূর্ণ অনেক ক্রিকেটার ইনজুরি নিয়ে খেলেছে আবার অনেকে ইনজুরিতে পড়েছে। বিষয়টাকে আমরা খুবই গুরুত্বের সাথে নিচ্ছি।’